1. nagorikkhobor@gmail.com : admi2017 :
  2. shobozcomilla2011@gmail.com : Nagorik Khobor Khobor : Nagorik Khobor Khobor
বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ০৯:১৫ অপরাহ্ন

সুশাসন নিশ্চিত করলে ভোট চাইতে হবে না : এলজিআরডি মন্ত্রী

নাগরিক খবর অনলাইন ডেস্কঃ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৮ জুলাই, ২০২২
  • ৪৬ বার পঠিত

স্বচ্ছতা ও সুশাসন নিশ্চিত করতে পারলে ভোটের জন্য ভোটারদের কাছে যেতে হবে না বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (২৮ জুলাই) বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে স্থানীয় সরকার বিভাগের বাস্তবায়িত ‘কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক স্থানীয় সরকার (ইএএলজি)’ প্রকল্প ও ইউএনডিপি আয়োজিত ‘স্টেকহোল্ডার কনফারেন্স অন লোকাল গভর্ন্যান্স: প্রগ্রেস, লার্নিং এবং ভবিষ্যৎ কর্মসূচী’ শীর্ষক সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ১৯৯৫ সালে আমাদের মাথাপিছু আয় ছিলো ৩২৫ ডলার। সে সময় সিরিয়াস ক্রাইসিস ছিলো। ১৯৯৬ সালে আমাদের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় আসেন। তখন থেকেই আমাদের পরিবর্তন আসে। আমাদের খাদ্য ঘাটতি পূরণ হয়, শিক্ষা, স্বাস্থ্যসহ সব খাতে ভালো কাজ হয়েছে। আমাদের বলা হতো ভিক্ষুকের জাতি, সেটি থেকে আমরা উন্নত জাতি হচ্ছি। সংবিধানে বলা আছে জনপ্রতিনিধি, সরকারি কর্মকর্তা ও জনগণ একসঙ্গে কাজ করবে। পৃথিবীতে পানি, গাছ আর মাটি ছাড়া কিছু ছিলো না, সবই মানুষ সৃষ্টি করেছে। আমরা যেসব প্রযুক্তি ভোগ করি সেগুলো মানুষ সৃষ্টি করেছে। বাংলাদেশে সুশাসন নিশ্চিত করতে হবে, জনগণের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে।

‘আমরা সবাই মিলে কাজ করে বাংলাদেশকে একটি পরিবর্তনের জায়গায় নিয়ে আসব। সম্পদ নিজেদেরই সৃষ্টি করতে হবে। আমরা জনপ্রতিনিধিরা মানুষকে প্রতিশ্রুতি দিয়েছি। সেজন্য আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে। কোন একজন মানুষ দরিদ্র থাকলে সেটা সরকারের জন্য ব্যর্থতা। কারণ জনপ্রতিনিধিরাও সরকারের অংশ। এখন আমাদের কোথায় ব্যর্থতা আছে সেটি দেখতে হবে। আপনাদের ইনকাম জেনারেট করতে হবে। স্থানীয় সরকার কাজ করবে, নিজেরা ইনকাম জেনারেশন করে যে ধরনের চাহিদা আছে পূরণ করে উন্নয়নমূলক কাজ করবে। সারাবিশ্বে সিটি করপোরেশন নিজেদের অর্থে চালাচ্ছে। ইউনিয়ন পর্যায়েও ইনকাম জেনারেশন করতে হবে। তাহলে আপনারাও খরচ মিলাতে পারবেন।

তিনি বলেন, যদি সরকারের উপর চাপ বাড়াই তাহলে তো সেটি ঠিক হবে না। ইউনিয়ন পরিষদকে ইনকাম জেনারেট করতে হবে। স্বচ্ছতা ও সুশাসন নিশ্চিত করতে পারলে আপনাদের (জনপ্রতিনিধি) সঙ্গে সম্পর্ক তৈরি হয়ে যাবে। তারা আপনাদের কার্যক্রমে সুবিধা পেলে একসময় ভোটের জন্য তাদের কাছে যেতে হবে না। দুঃশাসন কায়েম করে, অত্যাচার অবিচার থেকে মুক্তি দিতে না পারলে আপনাকে বার বার মানুষের কাছে প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হবে। আমি ১৯৯৬ সাল থেকে প্রতিবার ভোটে অংশ নিয়েছি, ভোটে পাস করলে আমাকে বিভিন্ন কথা শুনতে হয়েছে। আমি সঠিকভাবে কাজ করলে মানুষ ভোট দিবে।

তাজুল ইসলাম বলেন, আমি ভোটের জন্য কাজ করব না, মানুষের জন্য কাজ করব। মানুষের জন্য কাজ করলে ভোট নিয়ে ভাবতে হবে না। আমি যে এলাকা থেকে ভোট করি সেখানে সিরিয়াস অ্যান্টি আওয়ামী লীগ। কিন্তু এখন মানুষই আমার ভোটের জন্য টাকা খরচ করে। তাই বড় কাজ হলো সুশাসন নিশ্চিত করে নিজেদের ইনকাম জেনারেট করতে হবে। জনপ্রতিনিধিদের মর্যাদার জায়গায় যেতে হবে। যেতে না পারলে জোর করে টাইটেল লাগিয়ে শুধু পদবীর মর্যাদাই পাবেন। আমি যদি কাজ না করি তাহলে শুধু আউটলুক হবে। সম্মান আদায় করতে মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। মানুষের মুখে হাসি ফোটানোর মতো আনন্দের কিছু নেই।

এ সম্মেলনে ইউএনডিপির প্রোগ্রাম অ্যানালিস্ট মো. মোজাম্মেল হক কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক স্থানীয় সরকার (ইএএলজি) প্রকল্প পরিচিতি এবং অগ্রগতি, শিখন ও করণীয় বিষয়ের উপর একটি উপস্থাপনা করেন।

উপস্থাপনায় তিনি উল্লেখ করেন, সুইজারল্যান্ড দূতাবাস, ডেনমার্ক দূতাবাস এবং ইউএনডিপির সহায়তায় স্থানীয় সরকার বিভাগের (এলজিডি) ‘কার্যকর ও জবাবদিহিমূলক স্থানীয় সরকার (ইএএলজি)’ প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পটি আটটি বিভাগের নয়টি জেলার, পিছিয়ে পড়া ১৮টি উপজেলা পরিষদ ও ২৫১টি ইউনিয়ন পরিষদের সক্ষমতা উন্নয়ন করার লক্ষ্যে কাজ করছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 nagorikkhobor.Com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com