1. nagorikkhobor@gmail.com : admi2017 :
  2. shobozcomilla2011@gmail.com : Nagorik Khobor Khobor : Nagorik Khobor Khobor
শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৫:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
‌দেশ বি‌দে‌শের সকল খবর জান‌তে নাগ‌রিকে খব‌রের পা‌শে থাকুন ‌দেশ বি‌দে‌শের সকল খবর জান‌তে নাগ‌রিকে খব‌রের পা‌শে থাকুন ‌দেশ বি‌দে‌শের সকল খবর জান‌তে নাগ‌রিকে খব‌রের পা‌শে থাকুন ‌দেশ বি‌দে‌শের সকল খবর জান‌তে নাগ‌রিকে খব‌রের পা‌শে থাকুন ‌দেশ বি‌দে‌শের সকল খবর জান‌তে নাগ‌রিকে খব‌রের পা‌শে থাকুন কুমিল্লায় আফজল খা‌নের স্ত্রী না‌র্গিস সুলতানা আর নেই কু‌মিল্লায় মাছ বি‌ক্রির কথা ব‌লে ডে‌কে নি‌য়ে হাত পা‌য়ের রগ কে‌টে ব্যবসায়ি ম‌নির‌কে হত্যা ক‌রে সন্ত্রাসীরা ভারতে মোদি ম্যাজিকে ধাক্কা চতুর্থ ধাপের নির্বাচন সুষ্ঠ করতে আইনশৃঙ্খলা মনিটরিং সেল গঠন ‌দেশ বি‌দেশের সকল খবর জান‌তে নাগ‌রিক খব‌রের পা‌শে থাকুন

গরী‌বের কাপড় জ‌ড়ি‌য়ে চ‌লে গি‌য়ে‌ছেন বঙ্গবন্ধু- শেখ হা‌সিনা

নিজস্ব প্রতি‌বেদক:
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ২৯১ বার পঠিত
ছ‌বি: সংগৃ‌হিত

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শুধু দিয়েই গেছেন, কিছু নিয়ে যাননি। কারণ তাকে হত্যার পর এবং ১৫ আগস্টে যারা নিহত হয়েছেন, কাউকে কিন্তু তারা দাফন-কাফন দেয়নি। জানাজাও দেয়া হয়নি।’প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলার গরিব মায়েদের রেড ক্রিসেন্টের মাধ্যমে যে রিলিফ দিতেন, সেই রিলিফের শাড়ি-কাপড়ের পাড় ছিড়ে, সেই কাপড় দিয়েই আমার বাবাকে দাফন দেয়া হয়েছিল। গ্রামের গরিব ও দরিদ্র মানুষকে তিনি যে কাপড় দিতে পারতেন, সেই কাপড়টা জড়িয়েই তিনি চলে গেছেন।

সোমবার (৩১ আগস্ট) বিকেলে ‘জাতীয় শোক দিবস’ উপলক্ষে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে আয়োজিত আলোচনা সভায় অংশগ্রহণ (ভার্চুয়াল) করে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন প্রান্ত থেকে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সঙ্গে যুক্ত হন।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান জয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘১৫ আগস্টে হত্যাকাণ্ডের পর যেহেতু আমার বাবার লাশটা টুঙ্গিপাড়া নেয়া হয়েছিল সেখানে মাওলানা সাহেব এবং আশেপাশে যারা ছিল তারা জোর করেছিল বলে তাকে গোসলের সুযোগ দেয়া হয়েছিল। কাফনের কাপড় কেনার মতো কোনো দোকান খোলা ছিল না। কারফিউ দেয়া হয়েছিল। মানুষের কাছ থেকে তিনি কিছু নিয়ে যাননি, শুধু দিয়েই গেছেন। আমি এইটুকু বলব, কোনো আত্মত্যাগ বৃথা যায় না। তিনি যে স্বপ্ন দেখেছেন, এ দেশের মানুষের জীবনমান উন্নয়নের, ওইটাই আমার একমাত্র লক্ষ্য।’

ছাত্রলীগকে তিনি বলেন, ‘ত্যাগের মধ্যে শান্তি, ভোগের মধ্যে নয়। মানুষকে কিছু দিতে পারলে শান্তি পাওয়া যায়। জাতির পিতার আদর্শ নিয়ে চললে, দেশের মানুষকে কিছু দিতে পারবে। ডিজিটালের মাধ্যমে দেশটা যেন এগিয়ে যায় সেটাই তোমাদের কাছে কামনা করি।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2020 nagorikkhobor.Com
Theme Developed BY ThemesBazar.Com